শ্রীলংকার উন্নত ট্রাফিক ব্যবস্থা I

Sharing is caring!

শ্রীলংকা সাধারনত একটি দ্বীপ রাষ্ট্র যার পরিবহন ব্যবস্থা উন্নত এবং প্রযুক্তি নির্ভর।শ্রীলংকার প্রায় ৯৩% জায়গা সড়কের জন্য বরাদ্য করা আছে।যাতে উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর রাস্তা তৈরি করা হয়েছে।শ্রীলংকার গ্রাম থেকে শহর সব জায়গায় রাস্তা ভালো এবং সড়ক সংযোগ ব্যবস্থা আছে।

ট্রান্সপোর্ট ব্যবস্থা,

শ্রীলংকার ট্রান্সপোর্ট ব্যবস্থার প্রধান বাহন হল বাস।সাধারন মানুষ বাসে করে প্রতিদিন যাতায়াত করে।অফিস আদালত থেকে শুরু করে কাজে যাওয়া মানেই বাসের ব্যবহার।সরকারের পক্ষ থেকে যেমন ট্রান্সপোর্ট সুবিধা আছে তেমনি প্রাইভেট বিভিন্ন কোম্পানী রুট সুবিধার ব্যবস্থা করেছে।শ্রীলংকায় শহর থেকে গ্রাম সকল জায়গায় রুট সুবিধা আছে।যার কারনে একটি দ্বীপ রাষ্ট্র হওয়া শর্তেও দ্রুতযান উন্নত সড়ক ব্যবস্থা আছে।

শ্রীলংকার রাজধানী কলোম্বের সাথে সকল শহর এবং গ্রামের রাস্তার লিংক আছে।যার ফলে যাতায়াত সুবিধা বৃদ্ধি করেছে।বাস ভিত্তিক পাবলিক ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম রয়েছে, এটি পেটাহার সেন্ট্রাল বাস স্ট্যান্ডের কেন্দ্রস্থল হিসেবে শহরটির সড়ক নেটওয়ার্কের মধ্যে রেডিয়াল লিঙ্কগুলির সাথে শহর এবং জেলা কেন্দ্রগুলিকে লিঙ্ক করে।

এছাড়া যানবাহন সুবিধা অত্যাধুনিক এবং সাধারন মানুষের সুবিধা অনুযায়ী ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বর্তমান অবস্থা,

অনেক দিন আগে, এটি এমন জায়গা ছিল যেখানে খুব অল্প সংখ্যক পর্যটকরা আসত।কারন ট্রাফিক ব্যবস্থা খুব বেশি ভালো ছিল না।কিন্তু আজ এটি একটি আধুনিক মহাসড়ক যা অত্যাধুনিক ট্রাফিক ব্যবস্থার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রন করা হয়।যার ফলে বর্তমানে অনেক পর্যটক আসে এবং তারা বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান ঘুরে বেড়ান ।

শ্রীলংকায় ৪০০ টিরও বেশি ট্রেন স্টেশন, আরও ৫০০ টি প্রধান বাস স্টেশন, ৩ টি প্রধান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং ১২ টি ডোমেস্টিক বিমানবন্দর রয়েছে।গ্রামের চেয়ে শহরের মানুষ বেশি যানবাহন ব্যবহার করে।ফলে যানবাহন সমস্যা এবং ট্রাফিক জ্যাম এর সমস্যা শহরে হয়ে থাকে বেশি।পাবলিক যানবাহন সস্তা হওয়ার কারণে, রাজধানীতে বেসরকারি গাড়ির মালিকানা অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে বেশি।

সড়ক সমস্যা,

হাইওয়ে ও সড়ক নেটওয়ার্ক ব্যবস্থার ফলে রাস্তায় নতুন আসন্ন যানবাহন সরবরাহ করতে সুবিধা হয় এবং এর ফলে ট্রাফিক জ্যাম সৃষ্টি হয় এবং এ কারণে কলম্বো শহরে প্রচুর সময় অপচয় হয়।সব দেশেই ট্রাফিক জ্যাম হয়।উন্নত সকল দেশেই ট্রাফিক জ্যাম সৃষ্টি হয়।তেমনি শ্রীলংকাতেও বিভিন্ন সময় ট্রাফিক জ্যাম হয় এবং সাধারন মানুষের সময় অপচয় হয়।

শ্রীলংকার আইন অনেক কঠোর হওয়ার ফলে প্রতিটা মানুষ আইন মেনে চলে এবং ট্রাফিক নিয়ম গুলো মেনে চলে।ফলে সড়ক দুর্ঘটনার হার অনেক কম।শ্রীলংকা কোন দেশের সাথে কোন আন্তর্জাতিক ল্যান্ড সংযোগ রাখেনি।

সমাধান: কিছু গুরুত্বপূর্ণ সমাধান

আরো ট্রাফিক singnals / আলো সনাক্ত ব্যবস্থা করতে হবে।

রাস্তার ক্যাপাসিটি বৃদ্ধি করা উচিত।

পর্যটন আকর্ষণের জন্য নতুন সৃজনশীল ধারনা বাস্তবায়ন করতে হবে।

শ্রীলংকার অত্যন্ত উন্নয়নশীল স্তরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে এবং সরকার মূলত সম্পূর্ণ নতুন ধারনা এবং নীতিগুলি নতুন করে উদ্ভাবন করার চেষ্টা করছে এবং এটিকে কার্যকর করার জন্য বিবেচনা করা হচ্ছে। সাধারন জনগনের জন্য পরিবহন ব্যবস্থার বিষয়গুলি সম্পর্কে সচেতন হওয়া এবং তাদের জন্য সমাধান খুঁজে পাওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। স্থানীয় বাসগুলি শ্রীলংকান পরিবহণের প্রধান উপায়।

কিন্তু তথ্য অনুযায়ী গ্রাহকের চাহিদা মেটাতে আরো অনেক বাস দরকার।রোড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি বর্তমানে রাজপথের রক্ষণাবেক্ষণ ও উন্নয়নের জন্য এবং হাইওয়ে উন্নয়নে আরও কিছু পরিকল্পনা করছেন।পরিবহণের মান উন্নয়নের জন্য সরকার নতুন পদ্ধতি বাস্তবায়ন করেছে।এই সকল ব্যবস্থা গ্রহন করলে যেসব সমস্যা আছে সেগুলো থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।তাছাড়া ট্রাফিক জ্যাম কমিয়ে আনতে বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

—- মুমতাহিনা প্রমি

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares